টেলোফেজ কাকে বলে ? টেলোফেজের বৈশিষ্ট্য | What is Telophase

টেলিগ্ৰামে জয়েন করুন

টেলোফেজ কাকে বলে ? টেলোফেজের বৈশিষ্ট্য | What is Telophase

সুপ্রিয় পাঠকগন আমাদের এই নতুন পোষ্টে স্বাগতম , এই পর্বটিতে আমরা টেলোফেজ কাকে বলে এবং টেলোফেজের বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে নিখুঁত ভাবে আলোচনা করেছি, যা আপনাদের জন‍্য খুবই হেল্পফুল হবে।

পড়ুন : মাইটোসিস 

টেলোফেজ কাকে বলে :

গ্রিক- telos = end বা শেষ, phase = stage বা দশা)

নিউক্লিয়াস বিভাজনের যে দশায় কোশের দুই মেরুতে দুটি অপত্য নিউক্লিয়াস পুনঃসংগঠিত হয়, তাকে টেলোফেজ বলে। এটি নিউক্লিয়াস বিভাজনের চতুর্থ ও শেষ দশা।

টেলোফেজ এর বৈশিষ্ট্য :

টেলোফেজের গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য গুলি হল-

i. ক্রোমোজোমগুলি বিপরীত মেরুতে পৌঁছোনোর পর কুন্ডলী খুলে যেতে থাকে, ফলে অপত্য ক্রোমোজোম লম্বা ও সরু হয়।

ii. ক্রোমোজোমগুলিকে পরিবৃত করে কিছু এন্ডোপ্লামীয় জালিকা সজ্জিত হয় এগুলি পরস্পর যুক্ত হয়ে নিউক্লিয় পর্দা তৈরি করে।

iii. নির্দিষ্ট অপত্য ক্রোমোজোমে নিউক্লিওলার অর্গানাইজার অংশে নিউক্লিওলাস গঠিত হয়। দীর্ঘ ও সরু ক্রোমোজোমগুলি ধীরে ধীরে ক্রোমাটিন জালকে জালকে পরিণত হয়।

iv. অপত্য নিউক্লিয়াস দুটি জল শোষণ করে স্ফীত হয় ফলে ক্রোমোজোমগুলিকে আর দেখা যায় না, নিউক্লিয়াস দুটি স্বাভাবিক আকৃতি ধারণ করে।

এইভাবে সমসংখ্যক ক্রোমোজোমযুক্ত সমআকৃতি ও সমগুণ সম্পন্ন দুটি অপত্য নিউক্লিয়াস গঠনের মাধ্যমে মাইটোসিস বিভাজনের ক্যারিওকাইনেসিসের সমাপ্তি ঘটে।

আরও পড়ুন :

হিমোগ্লোবিন কি এবং গঠন ও কাজ ?  

লসিকা কাকে বলে এবং লসিকার গঠন, বৈশিষ্ট্য ও কাজ ?

অ্যামাইটোসিস কাকে বলে ,এর স্থান, পদ্ধতি ও তাৎপর্য ? 

Leave a Comment