স্টিলি কাকে বলে ? স্টিলির প্রকারভেদ

টেলিগ্ৰামে জয়েন করুন

স্টিলি কাকে বলে – what is stele : সুপ্রিয় বন্ধুরা আজকে তোমাদের সাথে শেয়ার করতে চলেছি স্টিলি কাকে বলে এবং স্টিলির প্রকারভেদ সম্পর্কে। চলুন একনজরে দেখে নেওয়া যাক আজকের মূল আলোচনাটি।

স্টিলি কাকে বলে ? স্টিলির প্রকারভেদ

স্টিলি কাকে বলে :

উদ্ভিদ অঙ্গে (কাণ্ড ও মূলে) উপস্থিত অন্তস্ত্বক (এন্ডোডারমিস, পেরিসাইকেল) দ্বারা পরিবৃত, প্রধানত জাইলেম ও ফ্লোয়েম দ্বারা গঠিত, জল ও খাদ্য সংবহনকারী স্তম্ভের ন্যায় কেন্দ্রীয় অঞ্চলকে কেন্দ্ৰস্তম্ভ বা স্টিলি বলে।

স্টিলির প্রকারভেদ :

উদ্ভিদ অক্ষের পরিস্ফুটনের ভিত্তিতে উদ্ভিদ বিজ্ঞানীরা (Smith, 1955; Esau. 1965 ; Fahn, 1982) স্টিলিকে প্রধান দু-ভাগে ভাগ করেছেন। যথা- প্রোটোস্টিলি ও সাইফোনোস্টিলি।

1. প্রোটোস্টিলি : মজ্জাবিহীন জাইলেম ও ফ্লোয়েম কলা নিয়ে গঠিত স্টিলিকে প্রোটোস্টিলি বলে। এই প্রকার স্টিলি সর্বাপেক্ষা সরল ও সহজ। মজ্জা না থাকায় এই স্টিলি কেবল জাইলেম ও ফ্লোয়েম কলা নিয়ে গঠিত। এক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় জাইলেম স্তম্ভকটি ফ্লোয়েম কলা দ্বারা পরিবৃত থাকে অথবা জাইলেম ও ফ্লোয়েম কলা পরস্পর মিশে প্লেট বা পট্টির এমতো গঠনে কেন্দ্রে বিন্যস্ত থাকে অথবা জাইলেম কলা ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র আকারে বিক্ষিপ্তভাবে ফ্লোয়েম কলায় নিহিত থাকে। লেপিডোফাইটা, টেরিডোফাইটা এবং কয়েকপ্রকার জলজ গুপ্তবীজী উদ্ভিদের প্রোটোস্টিলি থাকে । প্রোটোস্টিলি চার রকমের হয়, যথা- i. হ্যাপ্লোস্টিলি, ii. অ্যাকটিনোস্টিলি, iii. প্লেক্টোস্টিলি এবং iv. অরীয় স্টিলি।

i. হ্যাপ্লোস্টিলি : এক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় জাইলেম স্তম্ভকটি গোলাকার ও মসৃণ পরিধিবিশিষ্ট হয় এবং ফ্লোয়েম কলা সেটিকে ঘিরে বৃত্তাকারে অবস্থান করে। রাইনিয়া, সেলাজিনেলা ক্রাউসিয়ানা ইত্যাদি টেরিডোফাইটার এই প্রকার স্টিলি দেখা যায়।

ii. অ্যাকটিনোস্টিলি : এই প্রকার স্টিলিতে জাইলেম স্তম্ভকটি কোণাকৃতি হয় এবং প্রস্থচ্ছেদে তারকার মতো দেখায়। লাইকোপোডিয়াম, সেরেটাম, সাইলোটাম, আইসোয়েটিস প্রভৃতি উদ্ভিদে এই প্রকার স্টিলি দেখা যায়।

iii. প্লেক্টোস্টিলি : এই প্রকার স্টিলিতে জাইলেম ও ফ্লোয়েম কলা পৃথকভাবে নিরেট কোনো স্তম্ভক গঠন না করে পরস্পর মিলে অবস্থান করে। ফলে জাইলেম ও ফ্লোয়েম কলা পরস্পর সমান্তরালভাবে বিন্যস্ত কতকগুলি পৃথক প্লেটের মতো আকারে অবস্থান করে। লাইকোপোডিয়াম ক্ল্যাভেটাম, লাইকোপোডিয়াম ভলুবাইল উদ্ভিদের কাণ্ডের স্টিলি এই প্রকারের।

iv. অরীয় স্টিলি : মজ্জাবিহীন কেন্দ্রীয় সংবহনকলার স্তম্ভকসহ গুপ্তবীজী দ্বিবীজপত্রী উদ্ভিদের মূলের স্টিলিকেও একপ্রকার প্রোটোস্টিলি বলে গণ্য করা হয় এই প্রকার স্টিলিকে অনেকে অরীয় স্টিলি রূপে অভিহিত করেন। এক্ষেত্রে জাইলেম ও ফ্লোয়েম কলাগুচ্ছ পরস্পর অরীয়ভাবে বিন্যস্ত থাকে।

2. সাইফোনোস্টিলি বা টিউবিউলার স্টিলি : এই প্রকার স্টিলির ক্ষেত্রে প্যারেনকাইমা কোশ দিয়ে গঠিত বলয়াকার মজ্জা উপস্থিত থাকে জাইলেম ও ফ্লোয়েম কলা মজ্জাকে বলয়াকারে বেষ্টন করে থাকে। এই প্রকার স্টিলি টেরিডোফাইটার অন্তর্গত ফার্ন এবং ব্যক্তবীজী ও গুপ্তবীজী উদ্ভিদদের কান্ডে দেখা যায়।।সুতরাং কেন্দ্রস্থলে প্যারেনকাইমা কলা দিয়ে গঠিত বেলনাকার মজ্জাবিশিষ্ট স্টিলিকে সাইফোনোস্টিলি বলে।

জাইলেম ফ্লোয়েম কলার অবস্থান অনুযায়ী সাইফোনোস্টিলি দু-রকমের হয়, যথা –

i. এক্টোফ্লোয়িক সাইফোনোস্টিলি : এক্ষেত্রে একমাত্র ফ্লোয়েম স্তম্ভক জাইলেম স্তম্ভকের বাইরের দিকে বলয়াকারে অবস্থান করে। যেমন- ইকুইজিটাম কাণ্ড।

ii. অ্যাম্ফিফ্লোয়িক সাইফোনোস্টিলি : এক্ষেত্রে জাইলেম অন্তুকের উভয়দিকেই ফ্লোয়েম স্তম্ভক বলয়াকারে বিন্যস্ত থাকে। যেমন- মার্সিলিয়া, অ্যাডিয়েন্টাম ইত্যাদি কাণ্ড। উপরোক্ত প্রধান স্টিলিগুলি ছাড়াও বিভিন্ন উদ্ভিদে আরও কয়েক প্রকার সাইফোনোস্টিলি দেখা যায়।

আরও পড়ুন :

জাইলেম কাকে বলে এবং উৎপত্তি ও উপাদান ? 

Leave a Comment