আরগ‍্যাসটিক পদার্থ কাকে বলে ? এর অবস্থান ও গঠন

টেলিগ্ৰামে জয়েন করুন

আরগ‍্যাসটিক পদার্থ কাকে বলে

আরগ‍্যাসটিক পদার্থ কাকে বলে : আজকের আলোচ‍্য বিষয় হল আরগ‍্যাসটিক পদার্থ কাকে বলে এবং আরগ‍্যাসটিক পদার্থের গঠন ও কাজ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা।

আরগ‍্যাসটিক পদার্থ কাকে বলে :

কোশের প্রোটোপ্লাজমে অবস্থিত সজীব কোশ – অঙ্গাণুগুলি ছাড়া কোশের বিপাকজাত তরল বা কঠিন জড়বস্তুকে সামগ্রিকভাবে আরগ্যাসটিক পদার্থ বা সাইটোপ্লাজমিক ইনক্লুসন বা অজীবীয় বস্তু বলে ।

আরগ‍্যাসটিক এর অবস্থান :

আরগ্যাসটিক পদার্থ সজীব কোশের সাইটোপ্লাজমে বিক্ষিপ্তভাবে অবস্থান করে।

পড়ুন : সাইটোপ্লাজম

আরগ‍্যাসটিক এর গঠন :

কোশে সাধারণত তিন ধরনের আরগ্যাসটিক পদার্থ দেখা যায় যথা  – 1. সঞ্চিত পদার্থ , 2. ক্ষরিত পদার্থ এবং 3. বর্জ্য পদার্থ।

1.সঞ্চিত পদার্থ : উদ্ভিদকোশে বিভিন্ন ধরনের সঞ্চিত পদার্থ থাকে । শর্করাজাতীয় পদার্থের মধ্যে শ্বেতসার ও গ্লাইকোজেন , প্রোটিন – জাতীয় পদার্থের মধ্যে অ্যালিউরোন দানা সঞ্চিত থাকে । শর্করা ও প্রোটিন কঠিন বস্তু হিসেবে সাইটোপ্লাজমে এবং তৈলবিন্দু তরল হিসেবে কোশগহ্বরে জমা থাকে । আলু , ভুট্টা প্রভৃতি উদ্ভিদে শ্বেতসার , সরষে , বাদাম প্রভৃতি বীজে প্রচুর তেল সঞ্চিত থাকে।

2.ক্ষরিত পদার্থ : কোনো কোনো উদ্ভিদকোশের সাইটোপ্লাজমে ক্ষরিত পদার্থ সঞ্চিত থাকে । এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল— নেকটার বা মকরন্দ , রঙ্গক পদার্থ এবং বিভিন্ন ধরনের উৎসেচক।

3.বর্জ্য পদার্থ : উদ্ভিদকোশে বিপাকের ফলে বিভিন্ন ধরনের বর্জ্য পদার্থ উৎপন্ন হয় । সেগুলি কোশের সাইটোপ্লাজমে সতি থাকে । উল্লেখযোগ্য বর্জ্য পদার্থ হল গঁদ , রজন , তরুক্ষীর , ধাতব কেলাস , ট্যানিন , উপক্ষার ইত্যাদি । যেমন — বট , রবার প্রভৃতি গাছের পাতায় ক্যালশিয়াম কার্বোনেট নামক ধাতব কেলাস গুচ্ছাকারে সঞ্চিত থাকে । উদ্ভিদদেহের নাইট্রোজেনযুক্ত রেচন পদার্থ হল উপক্ষার ( alkaloids ) । এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল সর্পগন্ধা মূলের রেসারপিন , তামাক গাছের পাতার নিকোটিন প্রভৃতি।

আরও পড়ুন : 

মাইটোকন্ড্রিয়া কাকে বলে ? অবস্থান, গঠন এবং কাজ 

নিউক্লিয়াস কাকে বলে ? অবস্থান, গঠন এবং কাজ 

Leave a Comment