মাইটোকন্ড্রিয়া কাকে বলে ? মাইটোকন্ড্রিয়ার অবস্থান, গঠন এবং কাজ

টেলিগ্ৰামে জয়েন করুন

মাইটোকন্ড্রিয়া কাকে বলে ? মাইটোকন্ড্রিয়ার অবস্থান, গঠন এবং কাজ

মাইটোকন্ড্রিয়া কাকে বলে – What is Mitochondria : মাইটোকন্ড্রিয়া হল ঝিল্লি অবদ্ধ কোষের অর্গানল যা কোষের জৈব রাসায়নিক বিক্রিয়াকে শক্তি দেওয়ার জন‍্য প্রয়োজনীয় বেশিরভাগ রাষায়নিক শক্তি উৎপন্ন করে। মাইটোকন্ড্রিয়াতে তাদের নিজস্ব ক্রোমোজোম থাকে। আজকে আলোচনার বাষয় হল মাইটোকন্ড্রিয়া কাকে বলে এবং অবস্থান, গঠন ও কাজ সম্পর্কে।

মাইটোকন্ড্রিয়া কাকে বলে :

দ্বিস্তর বিশিষ্ট যে কোষীয় অঙ্গানু শ্বসন প্রক্রিয়ায় জীবকোষে শক্তি উৎপন্ন করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে তাকে মাইটোকন্ড্রিয়া বলে। মাইটোকন্ড্রিয়াকে কোষের শক্তি উৎপাদনকারী অঙ্গানুও বলে।

মাইটোকন্ড্রিয়া এর অবস্থান :

স্তন্যপায়ী প্রাণীর পরিণত লোহিত রক্তকণিকা , ব্যাকটেরিয়া কোশ ও নীলাভ সবুজ শৈবাল ছাড়া সব সজীব কোশেই মাইটোকনড্রিয়া উপস্থিত । মাইটোকনড্রিয়া কোশের সাইটোপ্লাজমের মধ্যে বিক্ষিপ্তভাবে ছড়িয়ে থাকে।

মাইটোকন্ড্রিয়ার গঠন :

1. মাইটোকনড্রিয়া দুটি একক পর্দা দ্বারা গঠিত । বাইরের পর্দাটি বহিঃপর্দা এবং ভিতরের পর্দাটি অন্তঃপর্দা । পর্দা দুটির মধ্যবর্তী স্থান পেরিমাইটোকনড্রিয়াল স্থান নামে পরিচিত।

2. অন্তঃপর্দা অনিয়মিতভাবে ভিতরের দিকে ভাঁজ হয়ে আঙুলের মতো প্রবর্ধকের সৃষ্টি করে , এদের ক্রিস্টি বলে।

3. মাইটোকনড্রিয়ার ভিতরে অর্থাৎ , অন্তঃপর্দার ভিতরের প্রকোষ্ঠে যে অর্ধতরল , প্রোটিন – সমৃদ্ধ পদার্থ থাকে তাকে ধাত্র বলে । ধাত্রের মধ্যে DNA , RNA , রাইবোজোম দানা ও বিভিন্ন প্রকার উৎসেচক থাকে।

4. ক্রিস্টি ও অন্তঃপর্দার ভিতরের গায়ে ছোটো ছোটো টেনিস র‍্যাকেটের মতো দানাদার বস্তু অবস্থান করে , যাদের অক্সিজোম বা ফারনানডেজ মোরান অধঃএকক ( F 1 কণা ) বলে।

5. মাইটোকনড্রিয়ার বাইরের গাত্রে ফাঁপা – গোলাকার দানা বিন্যস্ত থাকে । এদের পারসনের অধঃএকক বলে।

মাইটোকন্ড্রিয়ার কাজ বা বৈশিষ্ট্য :

মাইটোকন্ড্রিয়ার বৈশিষ্ট্য গুলি হল –

1. মাইটোকনড্রিয়া সবাত শ্বসন প্রক্রিয়ায় ক্রেবস্ চক্রের বিক্রিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করে।

2. কোশের বিভিন্ন প্রকার জৈবিক ক্রিয়া নিয়ন্ত্রণের জন‍্য প্রয়োজনীয় শক্তি মুক্ত করে তাই মাইটোকন্ড্রিয়াকে কোশের শক্তিঘর বলে।

3. মাইটোকনড্রিয়ার মধ্যে হিমোগ্লোবিন – এর হিম অংশ সংশ্লেষিত হয়।

4. এটি ফ্যাটি অ্যাসিডের বিপাকক্রিয়া নিয়ন্ত্রণ করে।

5. মাইটোকন্ড্রিয়া ATP অনু সংশ্লেষে সহায়তা করে।

আরও পড়ুন : 

নিউক্লিয়াস কাকে বলে ? অবস্থান, গঠন এবং কাজ 

সাইটোপ্লাজম কাকে বলে ? অবস্থান, গঠন এবং কাজ