আগ্ৰহ কাকে বলে ? আগ্ৰহের শ্রেণীবিভাগ ও বৈশিষ্ট্য

টেলিগ্ৰামে জয়েন করুন

আগ্ৰহ কাকে বলে ? আগ্ৰহের শ্রেণীবিভাগ ও বৈশিষ্ট্য

আগ্ৰহ কাকে বলে : সুপ্রিয় ছাত্রছাত্রীরা আজকে তোমাদের সাথে আলোচনা করলাম আগ্ৰহ কাকে বলে ? আগ্ৰহের শ্রেণীবিভাগআগ্ৰহের বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে। চলুন দেখে নেওয়া যাক বিস্তৃত আলোচনাটি।

আগ্ৰহ শব্দের অর্থ :

আগ্ৰহ শব্দটির ইংরেজি প্রতিশব্দ হল Interest যার ল‍্যাটিন অর্থ It Matters অর্থাৎ ব‍্যক্তির আগ্ৰহের বস্তু হল সেই সব গুলি তার সার্থের সাথে জড়িত।

আগ্ৰহ কাকে বলে :

আগ্ৰহ বলতে বোঝায় কোন বস্তু সম্পর্কে এমন একটি মনসিক সংগঠন যা ওই বিশেষ বস্তুটিতে ব‍্যক্তিকে মনোযোগ দিতে প্রবৃত্ত করে।

মনোবিদ লভেল এর মতে, আগ্ৰহ হল কোন ব‍্যক্তির বিশেষ ধরনের কাজের প্রতি আকৃষ্ট হওয়া বা সেই কাজ সুসম্পন্ন করার প্রবনতা।

মনোবিদ ড্রেভারের মতে, আগ্ৰহ হল একটি গতিলীল মনোভাব।

মনোবিদ জোনস এর মতে, অনুরাগ বা আগ্ৰহ বলতে আমরা বুঝি বাস্তব বা কাল্পনিক কোন বস্তু বা অবস্থার প্রতি আনন্দের অনুভূতি যা ব‍্যক্তিকি কোন কিছু করতে উদবুদ্ধ করে।

মনবিদ বিংহাম এর মতে, আগ্ৰহ হল এক প্রকার মানসিক অবস্থা যা ব‍্যক্তিকে কোন কাজে মনোনিবেশ করতেও সেই কাজ চালিয়ে যেতে প্রেরণা জোগায়।

উপরোক্ত সংজ্ঞা গুলি বিশ্লেষণ করে আগ্রহ বা অনুরাগের একটি কার্যকরী সংজ্ঞা দেওয়া যেতে পারে | আগ্রহ হল একটি মানসিক সংগঠন , যা ব্যক্তিকে কোনো কাজে তার পছন্দের অনুভূতি বুঝতে , তাকে সেই কাজে মনোনিবেশ করতে এবং কার্য সম্পাদন করতে প্রেরণা জোগায়।

আগ্রহের শ্রেণিবিভাগ :

অনুরাগ বা আগ্রহকে বিভিন্ন ভাগে ভাগ করা হয়। স্থায়িত্বের দিক দিয়ে আগ্ৰহ প্রধানত দুইপ্রকার। যথা- 1. ক্ষণস্থায়ী আগ্ৰহ এবং 2. দীর্ঘস্থায়ী আগ্ৰহ। এগুলি সম্পর্কে নীচে আলোচনা করা হল-

1.  ক্ষণস্থায়ী আগ্ৰহ কাকে বলে :

কোনো একটি বিশেষ উদ্দেশ্য পূরণের জন্য যে আগ্ৰহ দেখা যায় , তাকে ক্ষণস্থায়ী আগ্ৰহ বা অনুরাগ  বলে। উদ্দেশ্যপূরণের পর অনুরাগ অন্তর্হিত হয়।

2. দীর্ঘস্থায়ী আগ্ৰহ কাকে বলে :

জ্ঞান অর্জন বা অভিজ্ঞতা লাভের জন্য স্থায়ী আগ্ৰহকে  দীর্ঘস্থায়ী আগ্ৰহ বা অনুরাগ বলে। ক্ষণস্থায়ী ও দীর্ঘস্থায়ী অনুরাগ ছাড়াও কোনো কোনো মনোবিজ্ঞানী অনুরাগকে প্রকৃতি অনুযায়ী দুই ভাগে বিভক্ত করেছেন যথা-1. সহজাত এবং 2. অর্জিত ।

1. সহজাত অনুরাগ : যেসব অনুরাগ জন্মগতসূত্রে প্রাপ্ত হয় , তাদের সহজাত অনুরাগ বলে। যেমন- খাদ্যগ্রহণের প্রতি অনুরাগ , খেলাধুলার প্রতি অনুরাগ প্রভৃতি।

2. অর্জিত অনুরাগ : যেসব অনুরাগ মনোভাব , সেন্টিমেন্ট , শিক্ষা , অভ্যাস প্রভৃতি থেকে সৃষ্টি হয় , তাদের অর্জিত অনুরাগ বলে। যেমন- ডাক্তারের রুগির প্রতি অনুরাগ , অভিনেতাদের দর্শকের প্রতি অনুরাগ।

পড়ুন : স্মৃতি কি ? 

2. আগ্রহের বৈশিষ্ট্য গুলি হল :

আগ্রহের ধারণাটি স্পষ্ট করতে এর গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্যগুলি নীচে আলোচনা করা হল-

1. সামাজিক পরিবেশে প্রভাবিত : সমাজিক পরিবেশ বিশেষত সামাজিক আশা-প্রত‍্যাশা এবং অবস্থান আগ্ৰহের উপর প্রভাব বিস্তার করে।

2. পরিমাপযোগ‍্য : আগ্ৰহ পরিমাপযোগ‍্য। আগ্ৰহ পরিমাপের জন‍্য বর্তমানে একাধিক অভীক্ষা ব‍্যবহৃত হয়।

3. বংশগত ও অর্জিত : আগ্রহ সম্পূর্ণভাবে অর্জিত নয়  কারণ আগ্রহে বংশধারার কিছু প্রভাব লক্ষ‍্যনীয়।

4. স্থায়ী : আগ্রহ ব্যক্তিত্বের একটি স্থায়ী মানসিক সংগঠন বা প্রলক্ষণ। বুদ্ধি ছাড়া অন্যান্য সব অভীক্ষার স্কোরের চেয়ে আগ্রহের স্কোরের স্থায়িত্ব বেশি।

4. বিকাশশীল : একটা সাধারণ দিক ঠিক রেখে বয়সের সঙ্গে সঙ্গে আগ্রহের বিকাশ ঘটে থাকে।

5. চাহিদার পরিবর্তনের ওপর নির্ভরশীল : ব্যক্তি ও সমাজের চাহিদার পরিবর্তনের সঙ্গে সংগতি রেখে আগ্রহের মধ্যে পরিবর্তন দেখা যায়। সাধারণত 25 বছরের পর আগ্রহের পরিবর্তন আর লক্ষ‍্য করা যায় না।

6. তৃপ্তিদায়ক : ব‍্যক্তি তার আগ্ৰহ অনুযায়ী কাজ করার সুযোগ পেলে তার মধ‍্যে তৃপ্তির সূচনা হয়।

7. ব্যক্তিভেদে পৃথকীকরণ : এইরূপ সমান পরিবেশ  পরিস্থিতিতে ব্যক্তিভেদে আগ্রহের ব্যাপক পার্থক্য লক্ষ করা যায়।

8. সক্রিয়তা : কোন ব‍্যক্তির মধ‍্যে আগ্ৰহ সৃষ্টি করতে হলে ব‍্যক্তির সক্রিয়তা নিশ্চিত করা প্রয়োজন।

9. সাফল্যের অভিজ্ঞতানির্ভর : সাফল্যের অভিজ্ঞতা আগ্রহ বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

10. চাহিদানির্ভর : আগ্রহ সৃষ্টির মূল কারণ হল চাহিদা। শিক্ষার্থী বা ব্যক্তি যখন কোনো বিষয়ে চাহিদা বোধ করে তখনই তার মধ্যে ওই বিষয়টির প্রতি আগ্রহের সৃষ্টি হয়।

11. আগ্ৰহ হল সুপ্ত মনোযোগ : ম‍্যাকডুগালের মতে আগ্ৰহ হল সুপ্ত মনোযোগ এবং মনোযোগ হল সক্রিয় আগ্ৰহ।

12. অনুভূতিনির্ভর : অনেক ক্ষেত্রে ব্যক্তি এমন বিষয়ের প্রতি অনুরাগ বা আগ্রহ দেখায়, যার প্রতি তার সেন্টিমেন্ট যথাযথ ভাবে যুক্ত থাকে।

আরও পড়ুন : 

প্রেষণা কাকে বলে ? প্রেষণার বৈশিষ্ট্য ও শ্রেণীবিভাগ 

মনোযোগ কাকে বলে ? মনোযোগের শ্রেণীবিভাগ, প্রকৃতি, বৈশিষ্ট্য ও শর্ত

শিখন কাকে বলে ? শিখনের উপাদান, উদ্দেশ্য, বৈশিষ্ট্য ও স্তর

3 thoughts on “আগ্ৰহ কাকে বলে ? আগ্ৰহের শ্রেণীবিভাগ ও বৈশিষ্ট্য”

Leave a Comment